Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

আজই কার্যকর হচ্ছে কামারুজ্জামানের ফাঁসি?

আজই কার্যকর হচ্ছে কামারুজ্জামানের ফাঁসি?

Closed
একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধী জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল কামারুজ্জামানের ফাঁসি আজই হতে পারে বলে জোর গুঞ্জন চলছে। পারিপার্শ্বিক অবস্থা দেখে তেমনটিই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা
কারা সূত্রে জানা গেছে, আজ কামারুজ্জামানের সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি চেয়েছিল তার আইনজীবীরা। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ আইনজীবীদের সাক্ষাতের অনুমতি দেয়নি। এদিকে কামারুজ্জামানের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য আত্মীয়-স্বজনদের আজ বিকাল পাঁচটার দিকে সময় দিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।
অন্যদিকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, প্রাণভিক্ষার জন্য কামারুজ্জামানকে কয়েকঘণ্টা সময় দেয়া হবে। এরপরই খুব কম সময়ের মধ্যে কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর করা হবে। এসব কিছু বিবেচনায় নিয়ে অনেকেই মনে করছেন আজ রাতের মধ্যেই কামারুজ্জামানের ফাঁসি কার্যকর হতে পারে। তবে নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্রে এ খবর নিশ্চিত হওয়া যায়নি।
এর আগে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমও কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকরের ব্যাপারে একই কথা বলেছেন।
একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সিনিয়র সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের রিভিউ আবেদন খারিজ করে মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। সোমবার সকাল ৯ টা ৫ মিনিটে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।
এদিকে রায় ঘোষণার পর কখন কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকর করা হবে এ নিয়ে চলছিল নানা জল্পনা কল্পনা। রায় ঘোষণার পর সকালেই সংবাদ সম্মেলনে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘সরকার চাইলে যেকোনো সময় কামারুজ্জামানের দণ্ড কার্যকর করতে পারে। এ জন্য জেল কোডের বিধান প্রযোজ্য হবে না।’
তিনি আরো বলেন, ‘মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কামারুজ্জমানের বিচার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের রায় হয়েছে। আপিল বিভাগের রায় হয়েছে। আপিল বিভাগের রিভিউ পিটিশনের রায় হয়েছে। এখন তার দু’টি বিষয় বাকি রয়েছে। রাষ্ট্রপতির কাছে তিনি প্রাণভিক্ষা চাইবেন কি না সেটা তাকে জানাতে হবে এবং আপন জনের সঙ্গে দেখা করা। এরপর কবে তার দণ্ড কার্যকরা করা হবে তা সরকার নির্ধারণ করবে।’
একাত্তরে সোহাগপুর গ্রামে নির্বিচার হত্যাযজ্ঞের দায়ে ২০১৩ সালের ৯ মে কামারুজ্জামানকে ফাঁসির আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল-২। এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করে আসামিপক্ষ। গত বছরের ৩ নভেম্বর আপিল বিভাগ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতে ফাঁসির ওই আদেশ বহাল রাখেন। এরপর গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। পরদিন ট্রাইব্যুনাল-২ মৃত্যু পরোয়ানায় সই করে কারাগারে পাঠালে সেখানে বন্দী কামারুজ্জামানকে তা পড়ে শোনানো হয়। পরে ৫ মার্চ ফাঁসির রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন করে আসামিপক্ষ। আজ সেই আবেদন খারিজ করেন আপিল বিভাগ।

184_60994

Previous
Next