Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

খালেদা কি আপসহীন নেত্রী থাকবেন?

খালেদা কি আপসহীন নেত্রী থাকবেন?

Closed


তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সেনা প্রধানের স্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া রাজনীতিতে ‘আপসহীন নেত্রী’ হিসাবে পরিচিত। তার প্যারোলে মুক্তির প্রক্রিয়া নিয়ে সম্প্রতি লন্ডন নেতার (তারেক রহমান) নির্দেশে সরকারের সঙ্গে আপস চলছে বলে জানা গেছে । ফলে রাজনীতির শেষ অধ্যায়ে এসে তার প্রতিষ্ঠিত এই ‘রাজচরিত্র’ আদৌ বহাল থাকবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

গুঞ্জন রয়েছে, এ নিয়ে বিএনপির শীর্ষ তিন নেতার বৈঠক হয়েছে। কেন্দ্রীয় ২০ নেতাকে স্কাইপিতে এসে বুঝিয়েছেন তারেক রহমান। আপসের অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠক করেছে দলটি। সবশেষে আপসেই যদি মুক্তি মেলে, তাহলে খালেদা জিয়ার প্রতিষ্ঠিত রাজনৈতিক বৈশিষ্ট্য নষ্ট হয়ে যাবে বলে মনে করছে দলের বড় একটি অংশ।

দলের জ্যেষ্ঠ একাধিক নেতা বলেছেন, ১৯৮৬ সালে স্বৈরাচারী এরশাদের সঙ্গে আঁতাত করে ঐতিহ্যবাহী দল আওয়ামী লীগের কাণ্ডারি শেখ হাসিনা নির্বাচনে অংশ নিলেও নীতির সঙ্গে আপস করেননি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। অটল ছিলেন অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীর অধীনে কোনো নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার অঙ্গীকারে। তার এই দৃঢ় ভূমিকা প্রশংসিত হয়। ২০১৪ সালে সরকারের সঙ্গে আপসে গিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেননি তিনি। কারাগারে যাওয়ার আগে আপসের প্রশ্ন উঠলেও তিনি সিদ্ধান্তে অটল ছিলেন। কিন্তু সেই নেত্রীকে হঠাৎ আপসে মুক্তির গুঞ্জনে দলের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে দলের নেতাদের মধ্যে মতৈক্য থাকতে পারে। তবে এ সিদ্ধান্ত আসবে লন্ডন থেকে। কিন্তু এ নিয়ে বিএনপির মধ্যে দ্বিমত ও দোদুল্যমানতা রয়েছে।

সম্প্রতি বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে তিনি বা তার পরিবারের কেউ কোনো আবেদন করেননি। এমনকি সরকারের পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে কোনো প্রস্তাব দেওয়া হয়নি।’

এ ব্যাপারে দলের ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘প্যারোলে মুক্তির প্রশ্নই ওঠে না। আমরা আন্দোলনের মাধ্যমে তাকে মুক্ত করে আনবো।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মঈন খান বলেন, ‘প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। আইনি ও রাজনৈতিকভাবে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে।’

তবে, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘রাজনৈতিক মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রাখা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়ায় তার মু্ক্তি সম্ভব নয়।’

রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. শান্তনু মজুমদার বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘বিএনপি দোদুল্যমান অবস্থায় আছে, এপ্রিলের মধ্যে তাদের সাংসদদের শপথ নিতে পাঠাবে কিনা সে ব্যাপারে। এরকম হতে পারে যে, সংসদে যাওয়ার বিনিময়ে খালেদা জিয়া প্যারোলে মুক্তি পাবেন।’

তিনি বলেন, ‘এখন দল মানে তা একক মতামতের বিষয় নয়। দলের মধ্যে নানা মত থাকে। তবে আমার ধারণা, এর সব কিছু নির্ভর করবে লন্ডনের সিদ্ধান্তের উপর। অবাক হব না যদি সরকার তাদের বলে যে, আপনারা সংসদে আসেন, তারপর চিন্তাভাবনা করে দেখি, আপনাদের নেতাকে কীভাবে কী করা যায়।’

Previous
Next