Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

দলীয় সভানেত্রীর সিদ্ধান্ত অমান্য করে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন নয়ন

দলীয় সভানেত্রীর সিদ্ধান্ত অমান্য করে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন নয়ন

Closed

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি::
দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্ত অমান্য করে লক্ষ্মীপুরে জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন। এ নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরা বিভ্রান্তিতে রয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মনোনয়নপত্র দাখিলকে কেন্দ্র করে নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়নের পক্ষে সকাল থেকেই ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা মোটর সাইকেল বহর নিয়ে তার বাসার সামনে জড়ো হয়। জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে অন্তত ৫ শতাধিক মোটরসাইকেল জড়ো করায় কিছু সময় পর রায়পুর-লক্ষ্মীপুর সড়কে জানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় নেতা-কর্মীরা নয়নের পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দেয়।

দলীয় সূত্র জানায়, জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা গত ১৪ আগস্ট স্থানীয় একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়নকে চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামীলীগ সমর্থন দিয়ে কেন্দ্রে পাঠায়। কিন্তু গত ১৭ আগস্ট আওয়ামীলীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড সর্বসম্মতিক্রমে মো. শাহজাহানকে সমর্থন প্রদান করে।

এর আগেও ২০১৬ সালে জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা ডেকে নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন সমর্থন নেয়। তখনও আওয়ামীলীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড মো. শামছুল ইসলামকে সমর্থন দেয়। গত ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ওই নির্বাচনে মো. শামছুল ইসলাম বিজয়ী হন। চলতি বছরের ১৪ জুলাই শামছুল ইসলাম মৃত্যুবরণ করলে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হয়।

আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থী মো. শাহজাহান বলেন, আমি আশা করি যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তার আগামী ২৫ তারিখের মধ্যে তা প্রত্যাহার করে নিবেন। এর পরেও কেউ যদি দলের সিদ্ধান্ত অমান্য করে নির্বাচন করেন তাহলে দল তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবে। শেখ হাসিনার প্রতি ভোটাররা পূর্ণাঙ্গ আস্থা রেখে ঐক্যবদ্ধভাবে আমাকে জয়ী করবে।

দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্ত অমান্য করে মনোনয়নপত্র দাখিলকারী লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন বলেন, তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের অনুরোধে আমি প্রার্থী হয়েছি। নির্বাচনে জয়ী হয়ে আমি চেয়ারম্যান পদটি শেখ হাসিনাকে উপহার দেব।

জেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, চারজন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। আগামী ২৫ আগস্ট মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। ১০ সেপ্টেম্বর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Previous
Next