Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

নোয়াখালীতে শিক্ষিকা নিহতের ঘটনায় মামলা হাজারো মানুষের চোখের জলে ঝর্ণার দাফন

নোয়াখালীতে শিক্ষিকা নিহতের ঘটনায় মামলা হাজারো মানুষের চোখের জলে ঝর্ণার দাফন

Closed

10888818_1552223798328937_7239471434387103578_n
প্রতিবেদক : বিএনপিসহ ২০ দলের ডাকা হরতাল চলাকালে নোয়াখালীর মাইজদীর পৌর বাজারের সামনে পিকেটারদের ছোড়া ইটের আঘাতে নিহত সামছুন্নাহার ঝর্ণাকে গ্রামের বাড়িতে দাফন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বেলা ১১টায় লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার চর পোঁড়াগাছা গ্রামে পারিববারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয । তার জানাজায অংশ নিতে আসা লোকজন, যাদের ইটের আঘাতে স্কুল শিক্ষিকার করুণ মৃত্যু হয়েছে, তাদের শাস্তি দাবি করেন। নিহত সামছুন্নাহার ঝর্ণা ঢাকার আগারগাঁয়ের তাওহীদ ল্যাবরেটরি স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা ছিলেন। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে একটি কাভার্ড ভ্যানে করে গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চর পোঁড়াগাছার উদ্দেশ্যে স্বামী শাহজাহান সিরাজ ও ২ সন্তান নিয়ে যাচ্ছিলেন। ওই সময় পৌর বাজারের সামনে পিকেটারদের ছোড়া ইটের আঘাতে সামছুন্নাহার ঝর্ণা মাথায় আঘাত পেয়ে গুরুতর আহত হন। পরে তাকে নোয়াখালী আবদুল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এমসয় ইটের আঘাতে তার স্বামী ও বড় ছেলে প্রিন্স আহত হয়েছেন। নিহত ঝর্ণার স্বামী শাহজাহান সিরাজ ঢাকায় আমেরিকান লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানিতে কর্মরত রয়েছেন।
পরে সামছুন্নাহার ঝর্ণার মৃত দেহটি নোয়াখালী আবদুল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে নিজ বাড়ি রামগতি উপজেলার চর পোঁড়াগাছায় নিয়ে আসা হয়েছে।
প্রতিবেদক : ২০দলীয় জোটের ডাকা হরতাল চলাকালে নোয়াখালীর জেলা শহর মাইজদীতে পিকেটারদের ছুঁড়া ইটের আঘাতে ঢাকার পশ্চিম আগারগাঁও তাওহীদ ল্যাবরোটরী স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা সামছুন নাহার ঝর্ণা নিহতের ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে।
মঙ্গলবার সকালে সুধারাম মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ আলম বাদী হয়ে জেলা যুবদলের সভাপতি মাহবুব আলমগীর আলো, জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা মোনায়েম’সহ ২০দলীয় জোটের ৫০জন নেতা কর্মীর নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত নামা আরো অনেককে আসামী করে মামলাটি দায়ের করেন।
জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. ইলিয়াছ শরীফ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শিক্ষিকা হত্যার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ২০দলীয় জোটের ৫০জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত নামা আরো অনেককে আসামী করে হত্যা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
প্রসঙ্গত, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নিহত শিক্ষিকা সামছুন নাহার ঝর্ণা তার স্বামী সন্তানদের সাথে ঢাকা থেকে ক্যারর্ডোভ্যানে করে লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি তার গ্রামের বাড়ী যাচ্ছিলেন। এ সময় ক্যারর্ডোভ্যানটি মাইজদীর পৌরকল্যান উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে পৌঁছলে পিকেটাররা তাদের ভ্যানকে লক্ষ করে ইট পাটকে ছুঁড়লে শিক্ষিকা ঝর্ণার মাথায় ইট পড়ে তিনি আঘাত প্রাপ্ত হন। পরে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

Previous
Next