Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটূক্তির মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে: সেতুমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কটূক্তির মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে: সেতুমন্ত্রী

Closed
by November 23, 2014 জাতীয়

ঢাকা ব্যুরো : বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ‘কটূক্তি’ করার মাশুল বিএনপিকে দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল শনিবার সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার মধুমতি নদীতে নির্মিত পাটগাতী সেতু পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে আক্রমণ করে রাজনীতিতে বিএনপির অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা কঠিন হবে। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কটূক্তি করার মাশুল বিএনপিকেই দিতে হবে। ‘এছাড়া জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে দেশে ও লন্ডনে ‘অমার্জনীয় ভাষায়’ কথা বলায় বিএনপির ‘জনবিছিন্নতা’ শুরু হয়েছে বলেও এ সময় মন্তব্য করেন তিনি।
বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলনের হাঁকডাক দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করা ছাড়া আর কিছুই নয়। ‘
ছাত্রলীগের কর্মকা- সম্পর্কে তিনি বলেন, ছাত্র সংসদ নির্বাচন বন্ধ থাকায় ছাত্রলীগের মধ্যে অসন্তোষ রয়েছে।
তবে ছাত্রলীগের অপরাধমূলক কর্মকা-ের সুষ্ঠুু বিচার চলছে- এ কথা উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এ সকল কর্মকা-ে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিশ্বজিৎ হত্যায় জড়িতরা পার পায়নি। অতীতেও ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এখনও নেওয়া হবে। কোনো অপকর্মকারীকেই ছাড় দেওয়া হবে না। ‘
তিনি আরো বলেন, ‘ছাত্রলীগের মধ্যে কিছু আবর্জনা, আগাছা ও পরগাছা ঢুকে পড়েছে। এসব পরিষ্কার করতে সংস্কার করা হবে। এদের ব্যাপারে কোনো ছাড় নেই। ‘
পদ্মা সেতু প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, বিশ্ব ব্যাংক চলে গেলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতার কারণে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। আগামী ২০১৮ সালের মধ্যে পদ্মা সেতু নির্মাণ হবে। ওই বছরই সেতু যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে।
টুঙ্গিপাড়ারার পাটগাতী শেখ লুৎফর রহমান সেতুর কাজ শেষ পর্যায়ে জানিয়ে মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন আগামী জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী এ সেতুর উদ্বোধন করবেন। এর আগে মন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় তিনি সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। পরে মন্ত্রী পবিত্র ফাতেহা পাঠ ও বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত করেন।

এ সময় সড়ক বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আবুল কাশেম ভূইয়া, জেলা প্রশাসক মো. খলিলুর রহমান, তত্ত্ববধায়ক প্রকৌশলী মো. ইকবাল, নির্বাহী প্রকৌশলী সমীরণ রায়, উপবিভাগীয় প্রকৌশলী জহিরুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা মাহাবুব আলী খান, আবুল বশার খায়ের, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান সোলায়মান বিশ্বাস, পৌর মেয়র মো. ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 1

Previous
Next