Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

বিদায় ২০১৪

বিদায় ২০১৪

Closed
by December 31, 2014 জাতীয়

ষ্টাফ রিপোর্টার ::  বিদায় ২০১৪। বিদায় ইংরেজি দুই হাজার চৌদ্দ সাল-তোমাকে বিদায়। আশা, নিরাশা, হতাশা, নানা দুর্ভোগ, ঘটনা, দুর্ঘটনায় ভরা ২০১৪ সালের শেষ সূর্য অস্ত যাবে আজ। রাজনীতিতে সংকট, অর্থনীতিতে তেমন গতির সঞ্চার না হওয়া এবং দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পারাসহ সাধারণ মানুষের নানা চাহিদাকে অপূর্ণ রেখেই কালের গর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে আরেকটি ইংরেজি বছর। আগামীকাল থেকে শুরু হচ্ছে নতুন ইংরেজি বছর-২০১৫। হ্যাপি নিউ ইয়ার।noakhali pic 1-30-12-2014.jpg000

বিদায়ী বছরে দেশের রাজনীতির সব চেয়ে আলোচিত বিষয় ছিল, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন। নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি এবং ১৪ দলীয় জোটের অন্য শরীক দলগুলো অংশগ্রহণ করলেও দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট এ নির্বাচন বর্জন করে। সব দলের অংশগ্রহণে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন অনুষ্ঠিত না হওয়াই ছিল বিদায়ী বছরে দেশের দু’প্রধান দলের মূল রাজনৈতিক বিতর্ক।
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দাবি ৫ জানুয়ারির নির্বাচন না হলে দেশের গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা বিপন্ন কিংবা বিঘিœত হতো অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল বিএনপির দাবি ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে যায়নি-এদিন মূলত কোনো নির্বাচনই অনুষ্ঠিত হয়নি। তাই ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত সরকার ও সংসদ অবৈধ। সারা বছর ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগ-বিএনপির উত্তপ্ত তর্ক-বিতর্র্কের মধ্যে অতিবাহিত বছরের শুরু থেকে রাজপথ ছিল শান্ত-যা তপ্ত হয়ে উঠতে থাকে হঠাৎ ডিসেম্বর মাসে।

অর্থনীতি সারা বছর ধরেই ঢিমে তালে চলতে থাকে। বিদেশি বিনিয়োগ কিংবা নতুন বিনিয়োগের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য তেমন কিছু ঘটেনি বিদায়ী বছরে-দ্রব্যমূল্যের ওপর সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ না থাকলেও এর ওঠা-নামায় তেমন বিঘিœত হয়নি সাধারণ মানুষের জীবনযাপন। আইন-শৃঙ্খলা এবং দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে বিদায়ী বছরটি ছিল নানা ট্রাজেডি ও অঘটনে ভরা।

যার শেষ হয় প্রায় ৪ শ’ ফুট গভীর এক পাইপের মধ্যে সাড়ে ৩ বছরের শিশু জিহাদের নির্মম মুত্যু এবং ট্রেনের ওপর কাভার্ড ভ্যানের উঠে যাওয়ায় অনেক মানুষের হতাহত হওয়ার করুণ ট্রাজেডির মধ্যদিয়ে। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির চরম বহি:প্রকাশ ঘটে বিদায়ী বছরে নারায়ণগঞ্জের কুখ্যাত সেভেন মার্ডারের ঘটনায়।

২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম এবং তার ড্রাইভারসহ তিন সহযোগী এবং নারায়ণগঞ্জ কোর্টের সিনিয়র অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার সরকার ও তার তিন সহযোগী গুম হন এবং তিন দিন পর ৩০ এপ্রিল এদের মৃতদেহ ভেসে ওঠে শীতলক্ষ্যা নদীর শীতল জলে।

নারায়ণগঞ্জের সেভেন মার্ডার নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনসহ সর্বত্র ব্যাপক নিন্দা-প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জের সেভেন মার্ডারের ঘটনার পর নারায়ণগঞ্জ সফর করে নিহতদের বাসায় যান এবং তাদের স্বজনদের সঙ্গে দেখা করে সহানুভূতি জানান এবং নারায়ণগঞ্জে একটি জনসভায় এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করেন।

সরকার নারায়ণগঞ্জের সেভেন মার্ডারের দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ হিসেবে তিনজন র‌্যাব কর্মকর্তাকে চাকরিচ্যুত করাসহ তাদের গ্রেফতার ও মামলা দায়ের করে। বিদায়ী বছরের অন্যতম আরেকটি ট্রাজেডি ছিল বর্ষা মৌসুমে পদ্মা নদীতে ‘পিনাক’ লঞ্চের সলিল সমাধি। আগস্টের শুরুতে পদ্মা নদীতে ৩ শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় পিনাক-৬ লঞ্চটি।

যে লঞ্চের যাত্রী ধারণক্ষমতা ছিল মাত্র ৮৫ জন। সেই লঞ্চে কিভাবে ৩ শতাধিক যাত্রী উঠলো-তার জবাব দিতে পারেনি বিআইডাব্লুউটিএ এবং বাংলাদেশ শিপিং বিভাগ। পিনাক-৬ লঞ্চ ট্রাজেডিতে কয়েক ডজন মানুষ নিহত ও অগণিত মানুষ নিখোঁজ হয়ে যায় পদ্মা নদীর উত্তাল ঢেউয়ে। এ ছাড়াও বাস দুর্ঘটনা এবং সড়ক দুর্ঘটনার নানা অঘটন ঘটে বছর জুড়ে।

বিশেষ করে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার সাবেক এমডি ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক জগলুল আহমেদ চৌধুরীর বাস থেকে পড়ে স্পট ডেডের ট্রাজেডি রাজধানীর নিয়ন্ত্রণহীন ট্রাফিক ব্যবস্থার এক করুণ পরিণতি হিসেবে আলোচিত হয়।

নানা অঘটন ও দুর্ঘটনায় ভরা ২০১৪ সালে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে ক্রিকেট ও হকি। ক্রিকেটে দেশের মাটিতে ওয়ান ডে ও টেস্ট ম্যাচে বাংলাদেশ দল হোয়াইট ওয়াশ করে জিম্বাবুয়েকে-যা বাংলাদেশের জন্য এক বিরাট গর্ব বয়ে আনে। নভেম্বর মাসে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ৩ ম্যাচের টেস্টে বাংলাদেশ হোয়াইট ওয়াশ করে জিম্বাবুয়ে দলকে। বিদায়ী বছরে এশিয়া কাপ হকিতে খেলার সুযোগ পায় বাংলাদেশ হকি একাদশ।

Previous
Next