Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

মেয়াদ বৃদ্ধি: দোটানায় এফবিসিসিআই

মেয়াদ বৃদ্ধি: দোটানায় এফবিসিসিআই

Closed
প্রতিবেদক ; পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে দোটানায় পড়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। পরিচালকদের এক পক্ষ চান বর্তমান মেয়াদ দুই বছরের স্থলে তিন বছর করতে। অন্য পক্ষ চান মেয়াদ দুই বছরই বহাল থাকুক। পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ বাড়ানোর পক্ষে যুক্তি দিয়ে কয়েকজন পরিচালক বলছেন, প্রতি দুই বছর অন্তর অন্তর ফেডারেশনের নির্বাচন হয়। কমিটিতে থাকা পরিচালক পদে প্রার্থীরা ৫ থেকে ৬ মাস আগেই নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। প্রার্থীরা ভোটের সন্ধানে ঘুরেন। তখন ফেডারেশনের পূর্ব নির্ধারিত কাজে ব্যাঘাত ঘটে। আবার নির্বাচনের পর নতুন কমিটি তাদের কার্যক্রম বুঝে উঠতে কেটে যায় ৪ থেকে ৫ মাস। সব মিলে প্রায় এক বছর কেটে যায়। বাকি এক বছরে নতুন করে পদক্ষেপ নেয়া বা পুরাতন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সম্ভব হয় না। ফলে প্রত্যেক কমিটিরই সব পরিকল্পনা আলোর মুখ দেখে না। এই জন্য পরিচালকদের মেয়াদ আরো এক বছর বাড়ানো দরকার।তবে পরিচালক পদে প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে তিন মেয়াদের পরিবর্তে দুই মেয়াদ করা যেতে পারে। বর্তমানে পরিচালক পদে তিনবার প্রার্থী হওয়া যায়। কিন্তু এসব বিষয় নিয়ে আপত্তি তুলেছেন কোনো কোনো পরিচালক। তাদের মতে, প্রত্যেক পরিচালকেরই নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আছে। প্রায় সময়ই ফেডারেশনে সভা থাকে। এসব সভায় প্রচুর সময় দিতে হয়। এতে নিজেদের ব্যবসায় ক্ষতি হয়।নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন পরিচালক বলেন, ‘কিছু পরিচালক আছেন যারা ফেডারেশন থেকে বিভিন্ন সুবিধা নেয়ার জন্য আসেন, তারাই মেয়াদ বাড়ানোর কথা বলছেন। ফেডারেশনের সময় দিতে গিয়ে আমার নিজের ব্যবসায় ক্ষতি হচ্ছে।’জানা গেছে, গত ৩০ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পুনর্গঠন বা রিফর্ম কমিটি ও এফবিসিসিআই’র রিফর্ম কমিটির সমন্বয়ে একটি যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় ওই প্রস্তাব করা হয়। তখন পক্ষে-বিপক্ষে পরিচালকরা মতামত দেন।সভায় সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি পুনর্গঠন কমিটির প্রধান সালমান এফ রহমান। পরে ৪ অক্টোবর রিফর্ম কমিটির আওতায় গঠিত চেম্বার সংক্রান্ত সাব-কমিটি ওই প্রস্তাবে সম্মতি প্রকাশ করে। তবে ৩০ আগস্টের ওই সভায় এফবিসিসিআই’র অধীভুক্ত সব চেম্বার ও অ্যাসোসিয়েশন হতে ৪ জন করে মনোনীত প্রতিনিধিকে জেনারেল বডির সদস্য হিসেবে অন্তভুর্ক্ত করা, সব চেম্বার সভাপতিকে পদাধিকার বলে জেনারেল বডির সদস্য করা, সব চেম্বারকে একই শ্রেণির সদস্য হিসেবে বিবেচনা করা, চেম্বার থেকে ৩০ জন ও অ্যাসোসিয়েশন থেকে ৩০ জনকে নির্বাচিত করা, পরিচালকদের গোপন ভোটের মাধ্যমে সভাপতি, সিনিয়র সহসভাপতি ও সহসভাপতি নির্বাচনসহ বেশ কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

যোগাযোগ করা হলে এফবিসিসিআই’র সভাপতি মাতলুব আহমাদ  বলেন, ‘এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। প্রস্তাব উঠেছে। তবে আমি
মনে করি পরিচালনা পর্ষদের মেয়াদ বাড়ানোর প্রয়োজন নেই। ইচ্ছা করলে দুই বছরের মধ্যেই সব কাজ করা সম্ভব।

Previous
Next