Designed by shamsuddin noman

Skip to Content

শিখার নিরাপত্তা কোথায়?

শিখার নিরাপত্তা কোথায়?

Closed

সংবাদদাতা ; স্বামী হচ্ছে একজন নারীর সব চেয়ে বড় অভিবাবক। সে স্বামীই যদি নির্র্যাতন কারী অর্থ লোভী হয়। স্বামীর কাছেই যদি স্ত্রীর জীবনের নিরাপত্তা না থাকে । সে কার কাছে নিরাপত্তা পাবে? যাবেই বা কোথায়? একজন নারী তার মা -বাবা, ভাই – বোনসহ সকল আপনজন ছেড়ে স্বামীর কাছে যায়। জীবনের একটু সুখের জন্য স্বামীকে আপন করে নেয় । সেই স্বামী যদি যৌতুকের জন্য মানসিক ভাবে নির্যাতন করে এবং শারীরীক ভাবে নির্মন প্রহার করে । তাহলে এ রকম শিখাদের পাশে দাড়াবে কে? এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে,লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়নের অর্šÍগত নন্দনপুর মাদ্রাসার পাশে করিম উদ্দিন মিঝি বাড়ীতে। জানা যায়,শিখা আক্তারকে তার স্বামী যৌতুকের টাকার জন্য কারণে অকারণে নির্যাতন করে আসছে। ইতিপূর্বে শিখার স্বামী শাহজাহান তাকে একাধিক বার মারধর করে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। শিখার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শাহজাহান বিদেশ যাবে বলে শিখাকে মারধর করলে শিখার পরিবার ইতিমর্ধ্যে তাকে একলক্ষ টাকা ও দু’ভরি স্বর্ণ অল্কার দেয় । এখন আবার শিখাকে ২লক্ষ্য টাকার জন্য শারীরিক মানসিক নির্যাতন করে আসছে। শিখা বাপের বাড়ী থেকে আবার টাকা আনতে অস্বীকার করলে বা অপরাগতা প্রকাশ করলে ২৪এপ্রিল রাতে ও ২৫এপ্রিল সকালে শিখাকে কয়েক বার দফায় দফায় বেদরক মারধর করে। শিখাকে হত্যা করার জন্য নিষ্টুর স্বামী দড়ি দিয়ে তার গলায় পেঁচিয়ে টান দেয় শিখার পরিবার সূত্রে জানা গেছে। এই বিষয়ে ২৯ এপ্রিল সকাল ১০টার সময় সদর হাসপাতালে শিখা চিকিৎসাধীন অবস্থায় দৈনিক নোয়াখালী প্রতিদিন কে জানান,আমি বাচঁতে চাই। আমাকে বাচাঁন। আমি আমার স্বামীর অমানবিক অত্যাচার থেকে রক্ষা পেতে চাই এবং তার উপযুক্ত বিচার চাই। শিখা কান্না জড়িত কন্ঠে আরো জানান,শাহজানান আমাকে টাকার জন্য এভাবে দিনের পর দিন শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করে আসছে । আমি বিচার চাই । নাম প্রকাশে অনিচ্চুক স্থানীয় একাধিক নারীরা জানান,শাহজাহান লম্পট,চরিত্রহীন ও নেশায় আসক্ত। সেই টাকার জন্য শিখাকে নানা কৌশলে মারধর করে যাতে করে তার অঙ্গহানী ঘটে কিন্তু শরীল যেন ফেটে না যায় এবং রক্তাত্ব না হয়। এই বিষয়ে আপসোস করে বুদ্ধিজীবী নাছির উদ্দিন জানান, শাহজানের মত লম্পট পুরুষদের যদি বিচার না হয় তাহলে পাষান্ড স্বামীরা এভাবে অসংখ্যা স্ত্রীদের প্রতি অত্যাচার করে যাবে। যা হয়তে হেমন্তী মত অনেক নারীদের জীবন অকাশে আলো নিভে যাবে।

Previous
Next