আন্তর্জাতিক

গণতন্ত্র সূচকে ৮ ধাপ এগোল বাংলাদেশ অবনতি হয়েছে ভারতের

স্টাফ রিপোর্টার :: স্বনামধন্য ব্রিটিশ সাময়িকী ‘দি ইকোনমিস্ট’র অঙ্গ প্রতিষ্ঠান দি ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) বিশ্ব গণতন্ত্র সূচকে আট ধাপ অগ্রগতি হয়েছে বাংলাদেশের। বিশ্বের ১৬৫টি দেশ ও দুটি ভূখণ্ডের এই সূচকে গত বছর ৮৮তম অবস্থানে থাকলেও এ বছর ৮০তম স্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। বিশ্ব গণতন্ত্র সূচকে দেখা গিয়েছে ১০ ধাপ নেমে ৫১ নম্বরে রয়েছে ভারত। ২০০৬ সালে প্রথম রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল তারা। তার পরের বছরে ভারতের প্রাপ্ত নম্বর ছিল ১০ মধ্যে ৭.২৩। আর এবারে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৬.৯। আর গণতন্ত্র সূচকে গড় রয়েছে ১০ এর মধ্যে ৫.৪৪।বুধবার ইআইইউ গণতন্ত্র সূচক প্রকাশ করেছে।

ইআইইউ ২০০৬ সাল থেকে বিশ্ব গণতন্ত্র পরিস্থিতি পাঁচটি মানদণ্ডে ১০ স্কোরের ভিত্তিতে প্রকাশ করে আসছে। মানদণ্ডগুলো হল- নির্বাচনী ব্যবস্থা ও বহুদলীয় অবস্থান, সরকারে সক্রিয়তা, রাজনৈতিক অংশগ্রহণ, রাজনৈতিক সংস্কৃতি এবং নাগরিক অধিকার।

প্রতিবেদনে গণতান্ত্রিক পরিস্থিতিকে চারটি ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে। এগুলো হল- পূর্ণ গণতন্ত্র, ত্রুটিযুক্ত গণতন্ত্র, মিশ্র শাসন (হাইব্রিড) ও স্বৈরশাসন। স্কোর ৮-এর বেশি হলে পূর্ণ গণতন্ত্র, ৬ থেকে ৮ এর মধ্যে হলে ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র, ৪ থেকে ৬ হলে মিশ্র শাসন, স্কোর ৪-এর নিচে হলে স্বৈরশাসন চলছে বলে ধরা হয়। গণতান্ত্রিক এই সূচকে গতবারের চেয়ে আট ধাপ উন্নতি ঘটলেও বাংলাদেশের শাসনব্যবস্থাকে তৃতীয় শ্রেণির অর্থাৎ মিশ্র শাসনের অন্তর্ভুক্ত করেছে ইআইইউ। গত বছর এই সূচকে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৫ দশমিক ৭৭।

এবার স্কোর বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫.৮৮। গণতান্ত্রিক এই সূচকে বাংলাদেশের আট ধাপ অগ্রগতি হলেও প্রতিবেশী ভারতের অবনতি হয়েছে। গত বছর দেশটি ৭.২৩ স্কোর নিয়ে তালিকায় ৪১তম স্থানে থাকলেও এবার ৫১তে নেমে গেছে। এ বছর ভারতের স্কোর ৬.৯০। দক্ষিণ এশিয়ায় শ্রীলংকা ৬.১৯ স্কোর নিয়ে গত বছর ৭১তম অবস্থানে থাকলেও এবার দেশটির দুই ধাপ অগ্রগতি হয়েছে। শ্রীলংকা এ বছর ৬.২৭ স্কোর নিয়ে ৬৯তম অবস্থানে উঠে এসেছে।

৪ দশমিক ১৭ স্কোর নিয়ে পাকিস্তান গত বছর ১১২তম থাকলেও এবার ৪.২৫ স্কোর নিয়ে ১০৮তম অবস্থানে রয়েছে। ইআইইউর এই সূচকে এবারও ৯.৮৭ স্কোর নিয়ে শীর্ষে রয়েছে নরওয়ে। এরপরই আছে ৯.৫৮ স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় আইসল্যান্ড। তৃতীয় স্থানে রয়েছে সুইডেন (স্কোর ৯.৩৯), চতুর্থ নিউজিল্যান্ড (স্কোর ৯.২৬), পঞ্চম ফিনল্যান্ড (স্কোর ৯.২৫)। বিশ্ব গণতন্ত্র সূচকে এ বছর একেবারে তলানিতে কার্যত বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন উত্তর কোরিয়া। দেশটি ১.০৮ স্কোর নিয়ে ১৬৭তম অবস্থানে রয়েছে।

এছাড়া ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো ১৬৬তম (স্কোর ১.১৩), সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১৬৫তম (স্কোর ১.৩২), সিরিয়া ১৬৪তম (স্কোর ১.৪৩) ও চাদ ১৬৩ (স্কোর ১.৬১)। ইআইইউ বলছে, বিশ্বের মাত্র ২২টি দেশে পূর্ণ গণতন্ত্র রয়েছে, যেখানে প্রায় ৪৩০ মিলিয়ন মানুষের বসবাস। এছাড়া বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ জনগোষ্ঠী এখনও কর্তৃত্ববাদী শাসনব্যবস্থার অধীনে রয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close