ওপার বাংলা

করোনা গুজবে আতঙ্কিত  চিকিৎসক পরিবার পাশে প্রশাসন ।।

 

ওয়াসিম বারি,বসিরহাট, ভারত:  করোনা আতঙ্ক গুজব নিয়ে যে সর্তক প্রশাসন ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সামাজিক বয়কটের মুখে পড়েছিল খোলাপোতার চিকিৎসক পরিবার তাদের পাশে দাঁড়ালো বসিরহাট পুলিশ জেলা মাটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক সঞ্জীব সেনাপতি নেতৃত্বে একদল পুলিশ সঙ্গে স্থানীয় খোলাপাতা গ্রাম পঞ্চায়েত প্রদান অপারেশন মুখার্জি সামাজিক বয়কটের মুখে পড়া মণ্ডল পরিবারের পাশে সব রকম ভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন একদিকে যেমন পুলিশ প্রশাসন তাদের পাশে আছে অন্যদিকে স্থানীয় পঞ্চায়েত চিকিৎসক পরিবারের পাশে সর্বদা রয়েছে করোনা নিয়ে কেউ গুজব ছড়ালে আতঙ্ক পরিবেশ তৈরি করলে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা নেবে পরিবারকে সম্পূর্ণ নিরাপত্তা দেবে পুলিশ প্রশাসন। এবং যারা যারা এর সঙ্গে যুক্ত থাকবে তাদেরকে মোবাইল ফোন ট্রাক করে চিহ্নিত করে অবিলম্বে গ্রেফতার করা হবে। এমনটাই জানিয়েছেন পুলিশ প্রশাসনকে ।পাশাপাশি পঞ্চায়েত থেকে সব রকম ভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে চিকিৎসক পরিবারের পাশে। ইতিমধ্যে করো না রুখতে স্যানিটাইজার মাক্স হ্যান্ডওয়াশ সব রকম বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে।

চীন ফেরত চিকিৎসক ঋতুপর্ণা মন্ডল এখন কর্মরত দিল্লির কস্তুরী বাগ হাসপাতালের ট্রেনিং সেন্টারে। চিকিৎসক পরিবারের লোক কর্মস্থলে গেলে শুনতে হচ্ছে যে তাদের বড়ো মেয়ে ডক্টর ঋতুপর্ণা মন্ডলের করোনা হয়েছে। এই নিয়ে খোলাপোতা গুজব ছড়িয়েছে। এমনকি মা রেনুকা মন্ডল ধান্যকুড়িয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সুপারভাইজার। তার কাছে ফোন যাচ্ছে বিভিন্ন দিক থেকে এবং বাবা তিলক মন্ডল সিভিল ইঞ্জিনিয়ার তার কাছেও দিন রাতে ফোন আসছে তাদের বাড়ির মেয়ে চিকিৎসকের করোনা হয়েছে বলে। বোন রনিতা মণ্ডল চ্যাটার ইঞ্জিনিয়ার। তার কাছেও বিভিন্ন দিক থেকে ফোন আসছে। সবমিলিয়ে মন্ডল পরিবার আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। এমনকি চিকিৎসক পরিবারের পরিচারিকার কাজ করে কোহিনুর বিবি তাকেও রীতিমতো জবাবদিহি করতে হচ্ছে মানুষের কাছে। তাকে চিকিৎসক পরিবারের বাড়িতে কাজ করতে বাধা দেওয়া হচ্ছে। সব মিলিয়ে বসিরহাটের খোলাপাতায় কান পাতলে দেখা যাবে করোনার গুজবের নানান কাহিনী। ঋতুপর্ণা মন্ডল ভিডিওর মধ‍্য দিয়ে আবেদন জানিয়েছেন গুজবে কান দেবেন না। আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি, আমার কর্মস্থলে রয়েছি। যারা এই ধরনের গুজব রটাচ্ছেন তা সম্পূর্ণ না জেনেই করছেন। রীতিমতো চিকিৎসা পরিবার যেন সামাজিক বয়কটের মধ্যে পড়েছে। ডক্টর ঋতুপর্ণা মন্ডলের মা রেনুকা দেবী জানিয়েছেন যারা এই ঘটনা ঘটাচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করা হোক। আমি একজন স্বাস্থ্যকর্মী আমার পরিবারের অনেকেই চিকিৎসার সঙ্গে জড়িত। আমরা মানুষকে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন রকম পদক্ষেপ ইতিমধ্যে নিয়েছি। যেভাবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশ দিয়েছে। তাতে এই ধরনের গুজব মানা যায় না।   এর সঠিক তদন্ত হোক। খোলাপোতা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অপরেশ মুখার্জি বলেন যেখানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সতর্ক থাকার কথা বলছেন গুজব ছড়াবেন না আমরা সবরকম ব্যবস্থা করছি যারা এই ধরনের গুজব ছড়াচ্ছেন তাদের আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close