ফেনী

সোনাগাজীতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে প্রেমিকা ধর্ষন মামলার আসামী হলেন প্রেমিক

প্রতিবেদক : সোনাগাজীতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে প্রেমিকা ধর্ষণ মামলার আসামী হলেন আরিফুল ইসলাম সাকিব নামে এক যুবক।সে উপজেলার সুজাপুর গ্রামের সারেং বাড়ির মৃত আবুল কাশেমের ছেলে।গত শনিবার রাতে পুলিশ তাকে আটক করার পর রবিবার রাতে তার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষনের অভিযোগে মামলা করেন স্কুল পড়–য়া প্রেমিকা। পরে সোমবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মডেল থানার উপপরিদর্শক এয়াকুবুর রহমান জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে অভিযুক্ত সাকিবকে ফেনীর আদালতে সোপর্দ করেন।

জানা গেছে,এর আগে গত বৃহস্পতিবার সাকিব ও এলাকার কয়েক ব্যক্তির প্ররোচনায় স্কুল ছাত্রী তাকে ১১জন মিলে গনধর্ষন করেছে বলে মডেল থানায় অভিযোগ করেন।পুলিশ অভিযোগটি তদন্তকালে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে তাদের প্ররোচণার বিষয়টি বেরিয়ে আসে।

স্থানীয়রা জানায়,সাকিবের সাথে পাশ্ববর্তী বাড়ির কুয়েত প্রবাসীর নবম শ্রেনীতে পড়–য়া মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।উভয় পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ের কথাবার্তাও হয়।গত কিছুদিন পূর্বে রাতের বেলায় সাকিব তার প্রেমিকার সাথে কথা বলতে তাদের বাড়িতে যায়।এলাকার কয়েক যুবক তাদের কে দেখে চিৎকার শুরু করলে সে সটকে পড়ে।

বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকার কয়েক ব্যক্তির যোগসাজশে সাকিব তার প্রেমিকাকে চাপ প্রয়োগ করে বলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা না করলে সে তাকে বিয়ে করবেনা।সম্পর্ক রক্ষায় বাধ্য হয়ে সে ওই যুবকদের নামে থানায় ধর্ষনের অভিযোগ করে।

মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম পলাশ বলেন,থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর স্কুল ছাত্রীকে প্ররোচিত করে তাকে ১১ জন মিলে ধর্ষন করেছে এমন ভিডিও তৈরী করে সাকিব সাংবাদিকসহ বিভিন্ন মানুষের কাছে প্রেরণ করে। বিষয়টি আমাদের নজরে এলে পুলিশ স্কুল ছাত্রীকে হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে সবকিছু স্বীকার করে।

পরে স্কুল ছাত্রী স্বেচ্ছায় তাকে বিয়ের প্রলোভনে গত ২৮ সেপ্টেম্বর ধর্ষন করেছে উল্লেখ করে রবিবার রাতে সাকিবের নামে মামলা দায়ের করে।তিনি আরো বলেন,স্কুল ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে জবানবন্ধি গ্রহনের জন্য তাকে ফেনীর জুড়িশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়েছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close